বিপিয়া টিউটোর - এসো শিখি সহজ করে

বাংলা ভাষায় প্রযুক্তি সহজে উপস্থাপনের নিমিত্তে আমাদের এই ছোট্ট প্রয়াস।

🔍 কি খুঁজছেন!

ড্যাটাবেস সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা ও মৌলিক বিষয়বস্তু

আমরা যখন কম্পিউটারে কোন গান বা ভিডিও রাখি সেখানে জমা হয়ে থাকে । আমরা হার্ড ডিস্ক থেকে মুছে  না ফেলা পর্যন্ত সে গান বা ভিডিও সেই ফোল্ডারেই পরে থাকে । ঠিক এমনটাই ঘটে মোবাইলের মেমোরিতে । ডিলেট না করা পর্যন্ত সেই গান বা ভিডিও বা ফাইলটি সেই জায়গায় পরে থাকে । মেমরির ভিতরে প্রত্যেকটি গান , ভিডিও , ছবি সব গুলোর এক একটি ড্যাটা ফাইল (Data File) । আর এই সবকিছু মেমোরিতে ধরে রাখার পদ্ধতিই হল ড্যাটাবেস (Database) । প্রযুক্তির বিশাল একটি আশির্বাদ এই ড্যাটা । ড্যাটা শব্দের অর্থ উপাত্ত । ড্যাটা আসলে একটি প্লোরাল (Plural Word) যার সিঙ্গুলার শব্দ হল ড্যাটাম (Datum) যার অর্থ উপাদান । তাহলে ড্যাটাবেসের অর্থ কি?
ড্যাটাবেস দুটি পূর্ণার্থ নিয়ে গঠিত । একটি হল ড্যাটা (Data) ও আরেকটি হল বেস (base) । ড্যাটা শব্দের অর্থ আমরা জানি আর 'বেস' মানে হল সমাবেশ

ড্যাটা ছাড়া আমরা কোন কিছুই ধরে রাখতে পারি না । কোন ফাইলই সুসজ্জিত রাখতে পারি না । তাহলে যটফট ড্যাটাবেস সম্পর্কে আবিধানিক কিছু তথ্য জেনে নিই ।

ড্যাটাবেসের সংজ্ঞাঃ কোন সিস্টেমে অনেকগুলো ড্যাটার সমাবেশকে সুসজ্জিত করে সাজানোকে সংক্ষেপে ড্যাটাবেস (Database) বলে । অর্থাৎ, অনেকগুলো ড্যাটা নিয়েই একটি ড্যাটাবেস তৈরী হয় ।

ড্যাটার প্রকারভেদঃ
ড্যাটা অনেক ধরণের হতে পারে । তার মধ্যে প্রধানত এটি তিন প্রকার । চিত্রে বিস্তারিত দেয়া হল,

ড্যাটাবেস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমঃ
একটি বইয়ের থাক (Shelf) এর কথা চিন্তা করুন । আগে চিত্রটি ভালো করে দেখুন তার পর নিচের লেখা গুলো পড়ুন ।
চিত্রঃ বইয়ের থাক
থাকটিতে দুটি সারিতে ১২টা করে মোট ২৪টি বই আছে । আরও খেয়াল করুন , বইগুলো সুশৃঙ্খল সারিতে সারিবদ্ধ আছে । ২টি সারিতে (raw) ১২টি কলাম (column) আছে । কলাম গুলোর ভিতরে সুসজ্জিত করে বই রাখা যায় । এখানে বইগুলো হল উপাদান । আর থাকটি (Shelf) হল  বই রাখার থলে বা সহজে বলা যায় কন্টেইনার (Container) ।
↺ Read more | ইন্টারনেট কি (What is Internet) ?
ড্যাটাবেসের ভাষায় এই ঘটনাটি যদি বর্ণনা করি তবে বলা যায়, একটি টেবিলে ২টি সারি আছে, সারিগুলোর ভিতরে বই রাখার স্থানটিকে ফিল্ড (Database Field) বলে । আর এই টেবিলে ১২টি কলাম আছে । প্রত্যেকটি কলাম হল এট্রিবিউট (Attributes) । আমি নিশ্চিত আপনি বুঝেন নি , তাহলে নিচের টেবিলের তাকান,

প্রথমে জনপ্রিয় সব বই নিয়ে টেবিলটি সাজায় ।
টেবিল-১ঃ
সায়েন্স ফিকশান কাব্য উপন্যাস কবিতা সনেট গল্প
কেপলার ২২বি বনফুল হাজার বছর ধরে সঞ্চিতা কাকলী ঠাকুরমার ঝুলি
টুকুনজিল জুলেখা আমার বন্ধু রাসেদ সঞ্চয়িতা গীতপুষ্প বনিক মামা
অনিক লুম্বা গীতাঞ্জলী গেরিলা পাগলা দাসু রাঙাফুল ছোট্ট ছেলের দল
ট্রিনিত্রি রাশিমালা সঞ্জয়িতা মৃত্যুর আগে সুমেরু পদ্মা পাগলা মামা

দ্বিতীয় টেবিলে আমার যত্তসব প্রিয়গুলো নিয়ে টেবিল সাজায় ।
টেবিল-২ঃ
খাবারজায়গাখেলাটিভি সিরিজফলগল্প
চিকেন বিরিয়ানিশ্রীমঙ্গল বিটিআরসিফুটবলগল্প নয় সত্যিআমঠাকুরমার ঝুলি
আলু ভর্তাসুন্দরবনহকিহাতেম তাইখেঁজুরবনিক মামা
মাটন বিরিয়ানিকক্সবাজার সমুদ্র সৈকতক্রিকেটবিগব্যাগলিচুছোট্ট ছেলের দল
কাচ্চি বিরিয়ানিমাধবকুণ্ডবাস্কেটবলজমজআপেলপাগলা মামা

২টি টেবিলে ৫টি সারি ও ৬টি কলাম আছে । ড্যাটাবেসের ভাষায় এই প্রত্যেক সারিকে বলা হয়, RAW আর প্রত্যেক উলম্ব বরাবর কনটেন্ট গুলোকে বলা হয় , COLUMN । সারির প্রতিটা স্থানকে বলা হয় ফিল্ড (Filed) আর কলামের প্রতিটা স্থানকে বলা হয় এট্রিবিউট (Attributes) ।
এখন প্রশ্ন হল, সারি আর কলামের চিহ্নিত করা ফিল্ড আর এট্রিবিউট তো ঐ একটাই বুঝায় । যেমন, ১ম টেবিলের ২য় সারির তৃতীয় কলাম মানে টেবিলে "হাজার বছর ধরে" এটাকে বুঝায় । তবে এটাকে ফিল্ডও বলা হয় আবার এট্রিবিউটও বলা হয় । ব্যাপার কি?
আসলে যখন আমি ১টি সারিকে কল্পনা করবো তখন প্রত্যেকটি কনটেন্টকে বলা হয় ফিল্ড । যেমন যদি বলা হয়,
৩য় সারির ফিল্ডগুলো দেখাও তবে আপনি এরকমি দেখাবেন আশা করি !

অনিক লুম্বাগীতাঞ্জলীগেরিলাপাগলা দাসুরাঙাফুলছোট্ট ছেলের দল

সারির ভিতরে প্রত্যেকটি কন্টেন্টকে বলায় হয়, ফিল্ড । আশা করি বুঝতে পেরেছেন কোনগুলো ফিল্ড?

 আবার শুধু মাত্র যখন ১টি কলামকে কল্পনা করবো তখন এটার নাম এট্রিবিউট (Attribute) ।  আর যদি বলা হয় টেবিলের ৩য় কলামের এট্রিবিউটগুলো দেখাও তবে আপনি নিচের টেবিলটাই দেখাবেন,
উপন্যাস
হাজার বছর ধরে
আমার বন্ধু রাসেদ
গেরিলা
মৃত্যুর আগে

কলামের ভিতরে প্রত্যেকটি কন্টেন্টকে বলা হয়, এট্রিবিউট । এখন আশা করি ক্লেয়ার হয়েছেন ।
↺ Read more | এনিমেশন কি ! (What is Animation) ?
প্রাইমারি কী (Primary Key) কি?
প্রথম টেবিলে খেয়াল করুন,
টেবিলে কলামগুলো এক একটি ক্যাটাগরিতে সাজানো । অর্থাৎ, কবিতা কলামের এট্রিবিউটটা শুধু মাত্র কবিতার বই বুঝানো হয়েছে । কবিতা হল প্রাইমারি কী (Primary Key) । আর তার ভিতরে প্রত্যেকটি এট্রিবিউটই তার নিজস্য কন্টেন্ট । অর্থাৎ, মোটা করে ক্যাটাগরির যে নামগুলোকে মার্ক করা আছে সেগুলোই প্রাইমারি কি । স্বাভাবিকভাবে চিন্তা করলেও কোন একটি টেবিলের প্রত্যেকটি কলামের উপরে একটি ক্যাটাগরির নামই দেয়া সম্ভব । যেমন,

 টেবিল-১ এ,
সায়েন্স ফিকশানকাব্যউপন্যাসকবিতাসনেটগল্প

টেবিল-২ এ,
খাবারজায়গাখেলাটিভি সিরিজফলগল্প

ফরেন কী (Foreign Key) কি?
উপরের দুটি টেবিলে আবার খেয়াল করুনতো? দেখুন, ১ম টেবিলের "গল্প" প্রাইমারি কী-টি ২য় টেবিলেও বিদ্যমান । ১ম টেবিলে যেহেতু "গল্প" কলাম তৈরী করা হয়েগেছে তাই ২য় টেবিলে তা নতুন করে তৈরী করার দরকয়ার নেই । শুধু মাত্র প্রথম টেবিলের "গল্প" কলামটিকে ২য় টেবিলে এসাইন (Assign) করে দিলেইতো হল । একে বলা হয় ফরেন কী । অর্থাৎ, এই কী-টা অন্য কোন টেবিল থেকে হুবহু নেয়া ।

টেবিল -১ এ,
গল্প
ঠাকুরমার ঝুলি
বনিক মামা
ছোট্ট ছেলের দল
পাগলা মামা
টেবিল-২ এ,
গল্প
ঠাকুরমার ঝুলি
বনিক মামা
ছোট্ট ছেলের দল
পাগলা মামা

আশা করি আপনি ড্যাটাবেসের কিছু বিষয় ক্লেয়ার হয়েগেছেন । আগামি টিউনে ড্যাটাবেস নিয়ে আর থাকবে । ধন্যবাদ ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন